পরকীয়ার সাত সতেরো

পরকীয়া কি প্রেম? না মানসিক কোন রোগ? পরকীয়া কি মূলত হৃদয় জাত? না কি শরীর জাত অনুভুতি? পরকীয়া কি আসলেই বহুগামীতারই একটি রূপ? না কি পরকীয়া এটাই প্রমাণ করে, কোন প্রেম হৃদয়জাতই হোক আর শরীরজাতই হোক টেকে না বেশিদিন।

পড়তে থাকুন “পরকীয়ার সাত সতেরো”

গোপনাঙ্গের গোপনকথা

ভারতীয় নারীর যৌনাঙ্গ কোন কালেই সুরক্ষিত ছিল না। আজও নাই। বিবাহ নামক একটি প্রথার মাধ্যমে সেই যৌনাঙ্গ ভোগের অধিকার কোন একজন পুরুষের হাতে সমর্পণ করার প্রক্রিয়ার ভিতর দিয়েই ভারতীয় নারী আর পাঁচ জন পুরুষের যৌন লালসার শিকার হওয়া থেকে নিজেকে রক্ষার চেষ্টা করে থাকে।

পড়তে থাকুন “গোপনাঙ্গের গোপনকথা”

পুতুল নাচের ইতিকথা

নিজের সাথে নিজের দেখা হওয়া, এমন একটি ঘটনা আমাদের দৈনন্দিন জীবনে খুব বেশি ঘটে কি? না বোধহয়। নিত্যদিনের চাওয়া পাওয়া দেনা পাওনা দায়িত্ব কর্তব্যর বৃত্তে।

ঝুল ও ঝুলকাঠি

পথ চলতি পথিককে হঠাৎ যদি দ্যুম করে প্রশ্ন করা যায়। ঝুল ঝেরেছেন আজ? অবশ্যই প্রশ্নকর্তার মস্তিষ্কের সুস্থতা নিয়েই সন্দেহ দানা বাঁধবে শ্রোতার মনে। কিন্তু সংসার সামলানো সাধারণ গৃহস্থ মানুষ মাত্রেই জানেন ঝুল কি সংঘাতিক বস্তু।

পড়তে থাকুন “ঝুল ও ঝুলকাঠি”

শিক্ষকদিবসের গুরুত্ব!

আজ শিক্ষক দিবস। ভারতবর্ষে। অনেকেই নিজ নিজ শিক্ষকের কথা স্মরণে শ্রদ্ধার্ঘ অর্পণ করছেন ফেসবুকের ওয়াল জুড়ে। শিক্ষার্থী তার শিক্ষককে শ্রদ্ধা জানাবে। এমনটাই তো স্বাভাবিক। শোভন সুন্দর।

ঘর সাজানো শো-পিস

না সেই দিন আর নাই। বাংলা সাহিত্যের অমূল্যরতন হাতে নিমন্ত্রণ রক্ষা করতে যাওয়ার সংস্কৃতি বেশ কয়েক দশক আগেই বিলুপ্ত হয়েছে। কেউ যদি সেই সংস্কৃতি রক্ষায় প্রয়াসীও হন। সমাজে উপহাসের পাত্র হওয়ার সম্ভাবনা ষোলআনা।

কবি’র কবিতা ও তার ব্যক্তিচরিত্র

কাব্য সাহিত্যের একজন একনিষ্ঠ পাঠকের কাছে, কবির কবিতাই তো শেষ কথা হওয়া উচিৎ। কবির জীবনী নিশ্চয় কবির সাহিত্য কীর্তি’র থেকে বড়ো নয়। বিশেষ করে কবি’র ব্যক্তি চরিত্র কবির কাব্য উপভোগের পথে কোন অন্তরায় হয়ে উঠতে পারে কি? পাঠক যদি জানতে পারে।

চুমু খেতেও ভালো খেলেও ভালো

চুমু। না, বাংলায় প্রকাশ্যে মদ খাওয়া গেলেও চুমু খাওয়া মুশকিল। আপনি পান  বিঁড়ি সিগারেট খান। প্রকাশ্য রাস্তায় পানের পিক ফেলুন বুক ফুলিয়ে। কোন অসুবিধা নাই। নিজের নাক মুখ দিয়ে ধোঁয়া বার করে অন্যের নিঃশ্বাসে সজোরে ধাক্কা দিন। কেউ আপত্তি করবে না।

মহাকবির চেয়ার

কবিজীবন না কবিতা। কোনটির আকর্ষণ আমাদের কাছে বেশি? নিশ্চয়ই এর কোন নির্দিষ্ট উত্তর হয় না। পাঠকের ব্যক্তিগত জীবনবোধ। তার সাহিত্যিক প্রতীতি। মানসিক রুচি। ইত্যাদি বিভিন্ন বিষয় ক্রিয়াশীল থেকে এক একজন পাঠককে এক এক ভাবে পরিচালিত করে।

পড়তে থাকুন “মহাকবির চেয়ার”

প্রকৃত কবিতার গোড়ার কথা

কবিতা নিয়ে নানা মুনির নানা মত। সাহিত্যের পক্ষে সেটি স্বাস্থ্যপ্রদ। রামকৃষ্ণের কথায় যত মত তত পথ। মানুষের কবিতাও সেই রকমই নানা পথ ধরে এগিয়ে এসেছে। এগিয়ে চলেছে। বিচিত্র রূপে বৈচিত্রের সম্ভারে সমৃদ্ধ হয়ে। আর পথ পরিক্রমণের সেই নানান পথরেখায় গড়ে উঠেছে নানান ধরণের ঘরানা।

পড়তে থাকুন “প্রকৃত কবিতার গোড়ার কথা”